সব গুলো প্রবন্ধ দেখতে এখানে ক্লিক করুন

সঠিক ‘আক্বীদাহ ও উহার পরিপন্থি বিষয়গুলো কি কি?

সঠিক তাওহীদী ‘আক্বীদাহ সম্পর্কে জ্ঞান অর্জনের আবশ্যকতা। ক্বোরআনে কারীম ও রাছূলের (صلى الله عليه وسلم) ছুন্নাহ্‌তে বর্ণিত প্রমাণাদী দ্বারা একথা সুস্পষ্টরূপে প্রমাণিত যে, যাবতীয় কথা-বার্তা ও কাজ-কর্ম কেবল তখনই আল্লাহ্‌র (سبحانه وتعالى) নিকট সঠিক বলে স্বীকৃত ও গৃহীত হয়, যখন উহা বিশুদ্ধ ও সঠিক তাওহীদী (আল্লাহ سبحانه وتعالى এর একত্ববাদের)

“লা ইলা-হা ইল্লাল্লা-হ” এই শাহাদাহ তথা সাক্ষ্য প্রদানের অর্থ ও তাৎপর্য কি?

“لا إله إلا الله” (লা ইলা-হা ইল্লাল্লা-হ) এই বাক্যটির প্রকৃত ও যথার্থ অর্থ হলো:- لا إله حق إلا الله / لا معبود بحق إلا الله, অর্থাৎ- আল্লাহ ছাড়া আর কোন সত্য বা সত্যিকার মা‘বূদ নেই।

সব গুলো অডিও শুনতে এখানে ক্লিক করুন

ড. আশ্‌শাইখ রাবী‘ ইবনু হাদী আলমাদখালী রচিত “অন্তর থেকে অন্তরে” (২য় পর্ব)

এই অডিওটি “মিনাল ক্বালব ইলাল ক্বালব” (অন্তর থেকে অন্তরে) শিরোনামে আশ্‌শাইখ আল ‘আল্লামা রাবী‘ ইবনু হাদী আল মাদখালী حفظه الله প্রদত্ত অত্যন্ত মুল্যবান একটি ভাষণের বাংলা ধারাবাহিক অনুবাদ। এই পর্বে নিম্নোক্ত বিষয়াদী সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে:-
১) প্রথম পর্বের সংক্ষিপ্ত পূণঃআলোচনা
২) ক্বালবে ছালীম বা সরল-সঠিক অন্তরের পরিচয় সম্পর্কে আরো কিছু আলোচনা।
৩) অন্তরকে সরল-সঠিক তথা ছালীম বানানোর এবং বক্রতা থেকে হিফাযাতের কিছু শর্ত ও নিয়ম-নীতি।
৪) আবূ ছা‘ঈদ আল খুদরী رضي الله عنه বর্ণিত হাদীছের ব্যাখ্যা।
৫) সত্য অবলম্বন না করার কুফল।
৬) যাবতীয় ‘ইবাদাতে ইখলাসের আবশ্যকতা।

ড. আশ্‌শাইখ রাবী‘ ইবনু হাদী আলমাদখালী রচিত “অন্তর থেকে অন্তরে” (৩য় পর্ব)

এই অডিওটি “মিনাল ক্বালব ইলাল ক্বালব” (অন্তর থেকে অন্তরে) শিরোনামে আশ্‌শাইখ আল ‘আল্লামা রাবী‘ ইবনু হাদী আল মাদখালী حفظه الله প্রদত্ত অত্যন্ত মুল্যবান একটি ভাষণের বাংলা ধারাবাহিক অনুবাদ। এই পর্বে নিম্নোক্ত বিষয়াদী সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে:-
১) দ্বিতীয় পর্বে আলোচিত “ইখলাস” সম্পর্কে চমৎকার ধারাবাহিক আলোচনা।
২) প্রতিটি ভালো কাজে ইখলাস থাকতে হবে এবং সকল নেক ‘আমাল একমাত্র আল্লাহ্‌র (سبحانه وتعالى) জন্যেই করতে হবে।
৩) ‘আব্দুল্লাহ ইবনু ‘উমার رضي الله عنها বর্ণিত হাদীছের ব্যাখ্যা।
৪) মানুষকে সৃষ্টি করা হয়েছে খাঁটিভাবে শুধুমাত্র আল্লাহ্‌র (سبحانه وتعالى) ‘ইবাদাত করার জন্যে। যদি কেউ খালিসভাবে শুধুমাত্র আল্লাহ্‌র (عز وجل) ‘ইবাদাত করে, তাহলে সে ইহ ও পরকালে প্রতিদান লাভ করবে।
৫) ইখলাস তথা অন্তরের বিশুদ্ধতা অর্জনের জন্য ব্যক্তিকে আল্লাহ عز وجلসম্পর্কে জ্ঞান, আল্লাহ্‌র (جل وعلا) প্রতি ভয় এবং তাঁর প্রতি অগাধ ভালোবাসা থাকতে হবে।
৬) ইখলাস না থাকার মারাত্মক কুফল।

Subscribe to our mailing list

* indicates required
Close