• Usulud Deen Cover 2

ইমাম ইবনুল ক্বায়্যিম রচিত -‘উদ্দাতুস্‌ সাবিরীন ওয়া যাখীরাতুশ্‌ শাকিরীন- গ্রন্থ থেকে আলোচনা (১৩তম পর্ব)

শাইখ হাম্মাদ বিল্লাহ حفظه الله কর্তৃক এই অডিও বক্তৃতাটি হলো মূলত ইমাম ইবনুল ক্বায়্যিম رحمه الله প্রণীত -‘উদ্দাতুস্‌ সাবিরীন ওয়া যাখীরাতুশ্‌ শাকিরীন- নামক কিতাবের ভাষান্তর। গ্রন্থকার ইছলামিক দৃষ্টিকোণ থেকে -সাব্‌র বা ধৈর্য্য, অধৈর্য্য এবং শুক্‌র বা কৃতজ্ঞতা- এ ক‘টি গুরুত্বপূর্ণ দ্বীনী বিষয়ের অনুশীলনমূলক কাঠামো এবং এগুলোকে কিভাবে মানুষের প্রাত্যহিক জীবনে সংযুক্ত ও রপ্ত করা যায়, সেসব বিষয়ে অত্যন্ত চমৎকার ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ দিয়েছেন। গ্রন্থখানি ছয় শতাব্দী পূর্বে লিখা হলেও এর বিষয়-বস্তু অত্যন্ত সময় উপযোগী এবং বর্তমান বাস্তবতার সাথে অতি প্রাসঙ্গিক। শাইখ হাম্মাদ حفظه الله নিম্নোক্ত বিষয়াদী সম্পর্কে আলোচনা করেছেন:-
১) পূর্ববর্তী ১২ নং ক্লাসের সংক্ষিপ্ত পূণঃআলোচনা।
২) সাব্‌রের স্তর বিভিন্ন জনের বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে।
৩) কেউ যদি আাল্লাহ্‌র (عز وجل) সুমহান গুণাবলীকে ভালোবাসে, তাহলে এই ভালোবাসা তাকে আল্লাহ্‌র (سبحانه وتعالى) নৈকট্য লাভে সাহায্য করবে।

ইমাম ইবনুল ক্বায়্যিম রচিত -‘উদ্দাতুস্‌ সাবিরীন ওয়া যাখীরাতুশ্‌ শাকিরীন- গ্রন্থ থেকে আলোচনা (১২তম পর্ব)

শাইখ হাম্মাদ বিল্লাহ حفظه الله কর্তৃক এই অডিও বক্তৃতাটি হলো মূলত ইমাম ইবনুল ক্বায়্যিম رحمه الله প্রণীত -‘উদ্দাতুস্‌ সাবিরীন ওয়া যাখীরাতুশ্‌ শাকিরীন- নামক কিতাবের ভাষান্তর। গ্রন্থকার ইছলামিক দৃষ্টিকোণ থেকে -সাব্‌র বা ধৈর্য্য, অধৈর্য্য এবং শুক্‌র বা কৃতজ্ঞতা- এ ক‘টি গুরুত্বপূর্ণ দ্বীনী বিষয়ের অনুশীলনমূলক কাঠামো এবং এগুলোকে কিভাবে মানুষের প্রাত্যহিক জীবনে সংযুক্ত ও রপ্ত করা যায়, সেসব বিষয়ে অত্যন্ত চমৎকার ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ দিয়েছেন। গ্রন্থখানি ছয় শতাব্দী পূর্বে লিখা হলেও এর বিষয়-বস্তু অত্যন্ত সময় উপযোগী এবং বর্তমান বাস্তবতার সাথে অতি প্রাসঙ্গিক। শাইখ হাম্মাদ حفظه الله নিম্নোক্ত বিষয়াদী সম্পর্কে আলোচনা করেছেন:-
১) পূর্ববর্তী ১১ নং ক্লাসের সংক্ষিপ্ত পূণঃআলোচনা।
২) এ পর্বে শাইখ আবারো ওয়াহদাতুল ওয়াজূদের দাবিদার এবং উপরোক্ত হাদীছে ক্বোদছীর (যাতে বর্ণিত রয়েছে আল্লাহ سبحانه وتعالى বলেছেন:- “আমি তার কর্ণ হয়ে যাই যদ্বারা সে শুনে, আমি তার চোঁখ হয়ে যাই যদ্বারা সে দেখে, আমি তার হাত হয়ে যাই যদ্বারা সে ধরে”) ভুল ব্যাখ্যাকারী তথাকথিত সূফীদের দাবি প্রত্যাখ্যান ও খন্ডন করেছেন।
এমনিভাবে যারা রাছূলুল্লাহ-কে (صلى الله عليه وسلم) আল্লাহ্‌র (عز وجل) জাতি নূরের তৈরী বা আল্লাহ্‌র (سبحانه وتعالى) জাতি নূর থেকে সৃষ্ট বলে দাবি করে, উক্ত আলোচনায় শাইখ তাদের দাবি প্রত্যাখ্যান ও খন্ডন করেছেন এবং বিষয়টির সঠিক ব্যাখ্যা পেশ করেছেন। 

আল ইমাম মুহাম্মাদ ইবনু সালিহ্‌ আল ‘উছাইমীন কর্তৃক ব্যাখ্যাকৃত আল ইমাম ইবনু ক্বোদামাহ আল মাক্বদিছী রচিত -‘আক্বীদাহ সংকলন- গ্রন্থ (৭ম পর্ব)

এই অডিওটি হলো আশ্‌শাইখ মুহাম্মাদ ইবনু সালিহ্‌ আল ‘উছাইমীন رحمه الله কর্তৃক ব্যাখ্যাকৃত ইমাম ইবনু ক্বোদামাহ আল মাক্বদিছী رحمه الله এর সুপ্রসিদ্ধ গ্রন্থ “লুম‘আতুল ই‘তিক্বাদ” এর ধারাবাহিক অডিও ভাষান্তর। বক্তব্যে উল্লেখিত মূল বিষয়গুলো:-
(১) “বিদ‘আত পরিচিতি” পূনঃআলোচনা এবং এ সম্পর্কে ‘উলামায়ে কিরামের বক্তব্য।  
(২) যারা রাছূলুল্লাহ صلى الله عليه وسلم ও সাহাবায়ে কিরামের (رضي الله عنهم) ‘আক্বীদাহ ও ‘আমালের বিরোধিতা করে তাদের সম্পর্কে কিছু কথা।
(৩) বিদ‘আতের শার‘য়ী বিধান।

আল ইমাম মুহাম্মাদ ইবনু সালিহ্‌ আল ‘উছাইমীন কর্তৃক ব্যাখ্যাকৃত আল ইমাম ইবনু ক্বোদামাহ আল মাক্বদিছী রচিত -‘আক্বীদাহ সংকলন- গ্রন্থ (৬ষ্ঠ পর্ব)

এই অডিওটি হলো আশ্‌শাইখ মুহাম্মাদ ইবনু সালিহ্‌ আল ‘উছাইমীন رحمه الله কর্তৃক ব্যাখ্যাকৃত ইমাম ইবনু ক্বোদামাহ আল মাক্বদিছী رحمه الله এর সুপ্রসিদ্ধ গ্রন্থ “লুম‘আতুল ই‘তিক্বাদ” এর ধারাবাহিক অডিও ভাষান্তর। বক্তব্যে উল্লেখিত মূল বিষয়গুলো:-
(১) ছুন্নাহ্‌র প্রতি উৎসাহিত করা এবং বিদ‘আত থেকে সতর্ক করা।
(২) ৫ম পর্বের আলোচনার সার-সংক্ষেপ।
(৩) বিদ‘আত কি, বিদ‘আত কাকে বলে?

আল্লাহ্‌র (سبحانه وتعالى) সুমহান নাম ও গুণাবলী বিষয়ে আহলুছ্‌ ছুন্নাহ্‌ ওয়াল জামা‘আতের ‘আক্বীদাহ্‌-বিশ্বাস, নীতি ও আদর্শ

আহ্‌লুছ ছুন্নাহ ওয়াল জামা‘আতের ইমামগণ সকলেই এ বিষয়ে একমত যে, ক্বোরআনে কারীম এবং রাছূলুল্লাহ سبحانه وتعالى এর বিশুদ্ধ ছুন্নাহ্‌তে আল্লাহ্‌র যে সকল সুন্দর নাম যেভাবে বর্ণিত রয়েছে, কেবলমাত্র সেগুলোকে সেভাবেই আল্লাহ্‌র নাম বলে বিশ্বাস ও স্বীকার করতে হবে। তাতে কোনরূপ সংযোজন, বিয়োজন, পরিবর্তন কিংবা পরিবর্ধন করা যাবে না। কেননা

পড়তে এখানে ক্লিক করুন

কোর্টে (‘আদালাতে) ওকালতির কাজ করতে যেয়ে একজন আইনজীবীকে কখনো মন্দের পক্ষাবলম্বন করতে হয়, মন্দকে সাহায্য করতে হয়…

অন্যায় ও মন্দকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়া অত্যন্ত খারাপ কাজ (একজন অপরাধীকে অপরাধী জানা সত্ত্বেও তার সাফাই গাওয়া চরম মিথ্যাচার ব্যতীত কিছুই নয়। অথচ মিথ্যাচার হলো অন্যতম কাবীরাহ গুনাহ)। তাই মন্দকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দানের কিংবা মিথ্যাচারের মাধ্যমে উপার্জিত অর্থ অবশ্যই হারাম। ক্বোরআনে কারীমে আল্লাহ سبحانه وتعالى ইরশাদ করেছেন

রামাযানের দিনে মিছওয়াক করার বিধান কী?

রামাযানে দিনের বেলা মিছওয়াক করা মুছতাহাব্ব। রোযা কিংবা রোযা ব্যতীত উভয় অবস্থায়ই মিছওয়াক করা মুছতাহাব্ব। তাই রোযাদার দিনের যে কোন সময় মিছওয়াক ব্যবহার করতে পারে তাতে কোন অসুবিধা নেই। ছুনানে ইবনে মাজাহ এবং ছুনানে দারু ক্বোত্বনী-তে ‘আয়িশাহ رضي الله عنها বর্ণিত হাদীছ থেকে জানা যায় যে, রোযাদারের রোযাদারের সবচেয়ে উত্তম বৈশিষ্ট্য হলো মিছওয়াক করা।

Subscribe to our mailing list

* indicates required
Close